আয়মান সাদিক ফ্যাক্টস!

আমরা যখন ছোট ছিলাম, পড়াশুনা ছিল মহাআনন্দের বিষয়। কিন্তু আস্তে আস্তে আনন্দের বিষয়টা গেল চাপের, নিরান্দের। আমাদের মনে হতে লাগল কখন স্কুল ছুটি হবে, কখন ব্ল্যাকবোর্ডে শিক্ষকের অর্থহীন আকিবুকি শেষ হবে। কিন্তু, আমি তো স্বপ্ন দেখি পৃথিবী জয়ের , আর তা করতে হলে আমাকে এই ভাল না লাগা পড়াশুনাটা চালিয়ে যেতেই হবে, তা ভাবি আর জানালায় চোখ রেখে দীর্ঘশ্বাস ফেলি। কিন্তু এই নীরস পড়াশুনাটা ও যে আনন্দ করে শেখা যায়, ঠেকে নয়, দেখেও শেখা যায়। তা আমাদের সামনে নিয়ে এসেছেন একজন তরুন ।  

 Ayman Sadik

 

১। নাম আয়মান সাদিক।

 

২। জন্মঃ ০২ সেপ্টেম্বর, ১৯৯২। গ্রামের বাড়ি কুমিল্লায়।

 

৩। তাঁর পিতা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল তায়েব বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস-এর প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা এবং তাঁর মাতা শারমিন আক্তার একজন গৃহিণী।

 

৪। ছোটবেলায় আয়মান সাদিক পোকেমন (গেইম) মাস্টার হতে চেয়েছিলেন, কিন্তু এখন তিনি স্কুল মাস্টার হয়ে গিয়েছেন।

 

৫। তিনি একজন শিক্ষক, ট্রেনার, ও মোটিভেশনাল স্পিকার।

 

৬। তিনি এস. এস. সি ও এইচ. এস. সি পড়েছেন করেছেন বিজ্ঞান বিভাগে, কিন্তু ভর্তি হয়েছেন আইবিএতে।

 

৭। এরপর হিসাববিজ্ঞান শিখতে যেয়ে পড়েছেন মহাবিপাকে কারণ কিছুই তার কোছে বোধগম্য হচ্ছিল না, তাই  হিসাববিজ্ঞানের ভয়কে জয় করার জন্য অনলাইনে খুঁজে পেলেন কিছু টিউটিরিয়াল।  

 

৮। তারপর তার মাথায় খেলে গেল এক আইডিয়া তিনি ভাবলেন এই শেখার এই উপায় যদি লাখো শিক্ষার্থীর মাঝে ছড়িয়ে দেয়া যায়।

10minute school

৯। সেই ভাবনা থেকেই তিনি ১১ই আগষ্ট, ২০১৫ তে  চালু করলেন ১০ মিনিট স্কুল ।

 

১০। ১০ মিনিট স্কুল নামকরণের বিষয়ে তিনি জানিয়েছেন, বাঙালি বলতে পছন্দ করে ১০ মিনিটের মধ্যে করে দিচ্ছি , ১০ মিনিটের মধ্যে আসছি। তাই তিনি বহুল প্রচলিত কথা থেকে নামটি নিয়েছেন।

 

১১। বিসিএস ছাড়া এই স্কুলের প্রতিটি টিউটিরিয়ালের  দৈর্ঘ্য ১০ মিনিটের কম।

 

১২। ১০ মিনিট স্কুলের ওয়েবসাইটে  মুলত ইংরেজি, গণিত এবং বিজ্ঞানের নানা বিষয় যা একাডেমিক সিলেবাসের আওতাভুক্ত, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষাসহ চাকরির বিভিন্ন পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য রয়েছে  টিউটিরিয়াল  এবং বিভিন্ন বিষয়ের উপর দক্ষতা কিভাবে বাড়ানো যায়; তা নিয়ে ভিডিও পাওয়া যায়। তাছাড়া  IETS, SAT, GMAT এর টিউটিরিয়াল  পাওয়া যায়।

 

১৩। প্রতিষ্ঠানটি  শ্রোতাদের জন্য দুই সহস্রাধিক ভিডিও তৈরী করেছে।

 

১৪। ১০ মিনিট স্কুলের আইডিয়াকে বাস্তবে রুপ দেয়া মোটেও সহজ ছিল না, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট,  নর্থ সাউথ, ব্র্যাক ও বিইউপি এর কিছু শিক্ষার্থীদের সেচ্ছায় নিরলস পরিশ্রমের ফল এই প্রতিষ্টানটি। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও সাহায্য করেছেন তাদেরকে।

 

১৫। এই প্রতিষ্টানটির স্বপ্ন এদেশের শিক্ষার্থীরা যেন ঘরে বসেই বিশ্ববিদ্যালয় ও অন্যান্য ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে নিতে পারে।

Apicta-Awards-winner-ten-mi20171211112825

১৫। এখন পর্যন্ত ১০ মিনিট স্কুল পেয়েছে অনেক পুরস্কার ব্র্যাক ম্যানথান ডিজিটাল উদ্ভাবন পুরস্কার, গ্লোমো পুরস্কার, সামাজিক প্রভাবের জন্য সুইস দূতাবাস পুরস্কার, ইয়ুথ এওয়ার্ড ২০১৬, ডিওয়াইডিএফ ইওথ আইকন পুরস্কার, বিযম্যাস্ট্রোস চ্যাম্পিয়ন, ব্রাণ্ডউইটজ’ ১৩ চ্যাম্পিয়ন, ইউনিলিভার ফিউচার লিডার’স লিগ ২০১৬, এমডব্লিউসি পুরস্কার, বিশ্ব মোবাইল কনগ্রেসে গ্লোমো পুরস্কার ।

 

শুভ কামনা আয়মান সাদিক ও টেন মিনিটস স্কুলের জন্য।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *